ই-সেবা

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন নিয়ম

বর্তমানে ট্রেনের শতভাগ টিকেটই অনলাইন হতে ক্রয় করা যায়। আপনারা যারা জানেন না কিভাবে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট সংগ্রহ করতে হয়, তাদের জন্য বিস্তারিত ও ছবিসহ দেখাব বাংলাদেশ রেলওয়ে অনলাইন টিকেট কাটার নিয়ম। আপনি নিজেই আপনার মোবাইল থেকে বিকাশের সাহায্যে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কিনতে পারবেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ রেলওয়ে অনলাইনে টিকেট বিক্রয়ের জন্য Shohoz-Synesis-Vincen Joint Venture এর সাথে চুক্তি করেছে আগামী ৫ বছরের জন্য। তাই এখন থেকে সহজ ট্রেন টিকেট বিক্রয়ের কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

Contents hide

ট্রেনের টিকিট কাটার নতুন নিয়ম- ট্রেনের টিকেট কেনার নতুন পদ্ধতি

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন নিয়ম , নিরাপদ ভ্রমণের জন্য রেল যোগাযোগ এখন মানুষের কাছে অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশের ট্রেনের টিকেট অনলাইন এবং অফলাইন দুইভাবেই নেওয়া যেত কিন্তু কিছুদিন আগে অনলাইন টিকিট এর ক্ষেত্রে টেন্ডার জটিলতার কারণে অনলাইনে টিকিট বিক্রি বন্ধ হয়ে যায়।ফলে মাঝখানে অনলাইনে টিকিট না পেয়ে যাত্রীদের ভোগান্তি হলেও এর অবসান হতে চলেছে।অনলাইনে নতুন টিকেটিং সিস্টেম আজ থেকে চালু হওয়ার কথা রয়েছে।কিন্তু এবার সেই আগের মত ট্রেনের টিকিট কাটার পদ্ধতি চালু নেয়।

এখন থেকে অনলাইনে টিকিট কাটার ক্ষেত্রে নতুন পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। আপনারা অনেকেই জানেন না কিভাবে নতুন নিয়মে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটতে হয়। কিন্তু চিন্তার কোন কারণ নেই এই আর্টিকেলে আমরা দেখাবো, অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন নিয়ম। কিভাবে ট্রেনের টিকিট কাটবো।ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন সময়। ট্রেনের টিকেট কেনার নতুন পদ্ধতি সহ ট্রেনের যাবতীয় নতুন নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব এখানে। তাই ট্রেনের টিকেট কেনার/ কাটার আপডেট নিয়ম ও টিকেট কাটার নতুন পদ্ধতি যানতে এই আর্টিকেল টি শেষ পর্যন্ত পড়ুন ।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার সময়

বাংলাদেশে রেলওয়েকে সবচেয়ে নিরাপদ ও সাশ্রয়ী পরিবহন ধরা হয়। তাই দূরপাল্লার যেকোনো ভ্রমণে সবাই ট্রেন ব্যবহারেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে।

কিন্তু ট্রেনের টিকেট পাওয়া অত্যন্ত দুঃসাধ্য। অনেক লম্বা লাইনে দাড়িয়েও শেষ পর্যন্ত আপনি হয়তো টিকেট পাবেন না। তাই, আপনি ঘরে বসেই খুব সহজে আপনার মোবাইল থেকেই ট্রেনের টিকেট বুকিং করতে পারেন।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার সময় হলো রাত দিন ২৪ ঘণ্টা। আপনি আজ থেকে আগামী ৬ দিন পর্যন্ত ট্রেনের অগ্রিম টিকেট ক্রয় করতে পারবেন।

আসুন দেখে নিই কিভাবে ট্রেনের টিকেট কাটবেন।

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইটে নাম, ইমেইল ও মোবাইল নম্বর দিয়ে একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করুন। এরপর প্রোফাইলের তথ্য আপডেট করুন। আপনার স্টেশন ও গন্তব্য অনুযায়ী নির্দিষ্ট তারিখের ট্রেন সার্চ করুন। সবশেষে আসন বাছাই করে অনলাইনে পেমেন্ট করে টিকেট বুকিং কনফার্ম করুন।

Time needed: 15 minutes.

ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট কাটার প্রক্রিয়াটি বিস্তারিত দেখুন-

একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করুন

আপনার মোবাইল ফোন বা কম্পিউটার থেকে গুগল ক্রোম (Chrome) ব্রাউজার থেকে ভিজিট করুন এই ওয়েবসাইটে- Bangladesh Railway E-Ticketing Service
প্রথমেই আপনাকে বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইটে আপনার মোবাইল নম্বর ও ইমেইল দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন বা সাইন আপ করতে হবে। রেজিষ্ট্রেশনের জন্য উপরের ডান পাশ থেকে Register বাটনে ক্লিক করুন। নিচের মত একটি ফর্ম আসবে। এখানে আপনি ইংরেজিতে আপনার নাম, ইমেইল, ফোন নম্বর, ও ৮ অংকের একটি পাসওয়ার্ড দিবেন।
NID অথবা Birth Registration Number যেটি আপনি দিতে চান, সেটি Identification Type অপশনে Dropdown অপশন থেকে বাছাই করুন। আপনার National ID Number বা Birth Registration নাম্বার লিখুন। আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র এখনো হাতে না পেলে, অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করতে পারেন।
এরপর আপনার পোস্টকোড এবং নিচে ঠিকানা লিখুন। সব তথ্য অবশ্যই ইংরেজিতে লিখবেন। এখন ওয়েবসাইটের বাংলা ভার্সন প্রস্তুত হয়নি।
অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কেনার নিয়ম

মোবাইল ভেরিফাই করুন

এরপর আপনার মোবাইলে 6 ডিজিটে একটি Verification Code পাঠানো হবে এবং Code টি দিয়ে Verify করতে চাওয়া হবে। আপনার মোবাইলে আসা Code টি 45 সেকেন্ডের মধ্যে সঠিকভাবে লিখে Continue বাটনে ক্লিক করুন। আপনার একাউন্টটি প্রাথমিক ভাবে চালু হয়ে যাবে।অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

একাউন্টে লগ ইন করুন

ভেরিফিকেশন শেষে, স্বয়ংক্রীয়ভাবে আপনার প্রোফাইলে লগ ইন হয়ে যাবে। লগইন না হলে বা ভবিষ্যতে পুনরায় টিকেট ক্রয় করতে এই ওয়েবসাইটে ফিরে আসবেন এবং উপরের ডান পাশ থেকে Login মেন্যুতে ক্লিক করুন। রেজিষ্ট্রেশনের সময় আপনি যে Mobile No এবং Password দিয়েছিলেন, এখানে তা দিয়ে লগইন করুন।বাংলাদেশ রেলওয়ে লগইন

ট্রেন সার্চ করুন

প্রোফাইল আপডেট করা শেষে, ওয়েবসাইটের Home পেইজে ফিরে যান। আপনি কোন স্টেশন থেকে রওনা হবেন আর কোন স্টেশনে নামবেন সেই অনুসারে ট্রেন সার্চ করুন।
From – আপনি যে স্টেশন থেকে ট্রেনে উঠবেন বাছাই করুন এবং TO- তে আপনি যে স্টেশনে নামবেন তা বাছাই করুন।
Date of Journey থেকে আপনার ভ্রমণের তারিখ বাছাই করুন।
Choose Class – এখানে উপরের মত অপশনগুলো পূরণ করে হলুদ রংয়ের Find বাটনে ক্লিক করুন। এরপর আপনার বাছাই করা তারিখের সকল ট্রেনগুলো দেখানো হবে।
এখান থেকে ট্রেন ছাড়ার সময় অনুসারে আপনার পছন্দ মত ট্রেন থেকে টিকেট কাটার জন্য সিলেক্ট করুন।ট্রেনের অগ্রিম টিকেট

ট্রেন ও সিট বাছাই করুন

আপনার যাত্রার সময় ও আসনের ধরণ অনুসারে পছন্দমত ট্রেন ও সিট বাছাই করুন। এজন্য আপনার পছন্দের ট্রেনের আসন খালি থাকা সাপেক্ষে (Seats Available থাকলে) View Seats বাটনে ক্লিক করে সিট বুকিং করুন। শিশুদের টিকেটের মূল্য পরের ধাপে সমন্বয় করা হবে। এরপর CONTINUE PURCHASE বাটনে ক্লিক করে পরের ধাপে যান।ট্রেনের টিকিট ক্রয়

যাত্রীর তথ্য দিন

এ ধাপে যতগুলো সিট বুক করেছেন, তার যাত্রীদের নাম এবং শিশু বা বয়স্ক কিনা তা সিলেক্ট করতে হবে। ৩ থেকে ১২ বছর বয়সী শিশু থাকলে Passanger Type Child সিলেক্ট করুন। Child সিলেক্ট করলে তার ভাড়া স্বয়ংক্রীয়ভাবে সমন্বয় হবে বা কমে যাবে।অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয়

টিকেটের মূল্য পরিশোধ

এখানে টিকেটের মোট ভাড়ার পরিমাণ, ভ্যাট, ব্যাংক চার্জ ও মোট খরচের পরিমাণ দেখানো হবে। টিকেটের মূল্য পরিশোধ করার জন্য Mobile Banking (bKash) অথবা Debit/Credit Card অপশন বাছাই করুন। এরপর Confirm Purchase বাটনে ক্লিক করে পেমেন্ট সম্পন্ন করুন।অনলাইনে ট্রেনের টিকিট ক্রয়

ট্রেনের টিকেট প্রিন্ট করুন

সফলভাবে অর্থ প্রদানের ৩০ মিনিটের মধ্যে Railway E Ticket System থেকে ই টিকেট ইস্যু করা হবে। টিকেটটি আপনার প্রোফাইলের Upcomming Journey অপশন থেকে PDF আকারে ডাউনলোড করুন এবং A4 সাইজের কাগজে প্রিন্ট করুন। তাছাড়া, টিকিটের একটি কপি আপনার ইমেইলেও পাঠানো হতে পারে। ইমেইলেরর Inbox Folder এ না পাওয়া গেলে SPAM Folder চেক করতে পারেন।

মোবাইলে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

মোবাইলে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য আপনার মোবাইলের Google Chrome ওপেন করুন এবং eticket.railway.gov.bd সাইটে ভিজিট করে উপরের দেখানো পদ্ধতি একইভাবে টিকেট ক্রয় করুন।

বিকাশে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

সরাসরি বিকাশ এ্যাপ থেকেও আপনি ট্রেনের টিকেট কাটতে পারেন। তবে এটি সরাসরি ওয়েবসাইট থেকে কাটার মত একই হবে। ওয়েবসাইট থেকে ট্রেনের টিকেট কাটার পদ্ধতিটি দেখুন- ওয়েবসাইট থেকে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

ট্রেনের টিকেট মূল্য

ঢাকা টু চট্টগ্রাম ট্রেনের টিকেট
ঢাকা টু রাজশাহী ট্রেনের টিকেট
ঢাকা টু সিলেট ট্রেনের টিকেট

ট্রেনের টিকেট ফেরত বা বাতিল করার নিয়ম

অনেকেই ট্রেনের টিকেট 4/5 দিন আগে কিনে রাখেন। কোন অনাকাঙ্খিত সমস্যার কারণে ভ্রমণ বাতিল হতেই পারে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের ট্রেনের টিকেট ফেরত দেওয়ার জন্য অবশ্যই আপনার স্টেশনের কাউন্টারে যেতে হবে। টিকেট ফেরতের ক্ষেত্রে নিম্মোক্ত চার্জ ধার্য করা হবে।

  • যাত্রা শুরুর 48 ঘন্টা আগে টিকিট ফেরত দেওয়ার ক্ষেত্রে, এসি ক্লাসের জন্য 40 টাকা, প্রথম শ্রেণীর জন্য 30 টাকা এবং অন্য শ্রেণীর জন্য 25 টাকা পরিষেবা চার্জ সহ কাটা হবে।
  • 48 ঘন্টার কম এবং 24 ঘন্টার বেশি হলে, ভাড়ার 25% কাটা হবে।
  • 24 ঘন্টার কম এবং 12 ঘন্টার বেশি হলে, ভাড়ার 50% কাটা হবে।
  • 12 ঘন্টার কম এবং 06 ঘন্টার বেশি ভাড়ার 75% কাটা হবে।
  • 06 ঘন্টার কম সময়ের জন্য কোন ফেরত নেই।
  • অনলাইন ক্রয়ের জন্য সার্ভিস চার্জ অ-ফেরতযোগ্য।

ট্রেনের টিকেট কেনার শর্তাবলী

বাংলাদেশ রেলওয়ে টিকিট ক্রয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য শর্তাবলী (তথ্যসূত্র- বাংলাদেশ রেলওয়ে ই টিকেটিং সার্ভিস)

  • রেলের টিকিট ইস্যু করার জন্য, বাংলাদেশ রেলওয়ে পোর্টাল কার্ড/ওয়ালেট চার্জ তথ্যের জন্য বিভিন্ন পেমেন্ট গেটওয়ের উপর নির্ভর করে। বাংলাদেশ রেলওয়ে যাত্রীদের কোনো সংবেদনশীল তথ্য যেমন কার্ড/ওয়ালেটের বিবরণ, ওটিপি, পিন কোড সংরক্ষণ করে না।
  • যদি কোনো কার্ড/ওয়ালেট চার্জ করা হয় এবং/অথবা পেমেন্ট গেটওয়ে যথাসময়ে তথ্য ফেরত দিতে ব্যর্থ হয়, তাহলে এটা সম্ভব যে যাত্রীর কার্ড/ওয়ালেটে কাঙ্খিত টিকিটের জন্য ইস্যু করা ছাড়াই চার্জ করা হবে। এই ধরনের ক্ষেত্রে, পেমেন্ট গেটওয়ে স্বয়ংক্রিয়ভাবে 8 (আট) কার্যদিবসের মধ্যে গ্রাহক-যাত্রীর দ্বারা ক্রয়কৃত অর্থ তাদের নিজ নিজ কার্ড/ওয়ালেটে ফেরত দেবে।
  • যাইহোক, যদি এই ধরনের একজন ক্লায়েন্ট-যাত্রী 8 (আট) কার্যদিবসের মধ্যে ফেরত না পান, তাহলে ক্লায়েন্ট-যাত্রীকে support@br.gov.bd এ সমস্যাটির বিশদ বিবরণ সহ একটি অভিযোগ ইমেল পাঠাতে অনুরোধ করা হচ্ছে । এই ধরনের একজন ক্লায়েন্ট-যাত্রীকে উত্তর 7 কার্যদিবসের মধ্যে পাঠানো হবে।
  • অর্থপ্রদান পরিষেবা প্রদানকারীদের উপর নির্ভরতার কারণে, সমস্যাটি সমাধান করতে কয়েক দিন সময় লাগতে পারে।
  • অসফল কেনাকাটা এবং কার্ড চার্জিং সংক্রান্ত সমস্যাগুলির ফেরতের জন্য, ক্লায়েন্ট-যাত্রীকে অবশ্যই পেমেন্ট পরিষেবা প্রদানকারীর সাথে যোগাযোগ করতে হবে যার মাধ্যমে তিনি লেনদেন করেছেন।
  • সফলভাবে কেনা টিকিট ফেরতের জন্য, ক্লায়েন্ট-যাত্রীকে অবশ্যই তাদের নিজ নিজ স্টেশনে যেতে হবে (অর্থাৎ, প্রস্থান স্টেশন যেখান থেকে ক্লায়েন্ট-যাত্রী ভ্রমণ করবেন) এবং ফেরত কাউন্টারের সাথে যোগাযোগ করুন।

ট্রেনের টিকেট কেনার আরও শর্তাবলী

  • বাংলাদেশ রেলওয়ে বা Shohoz-Synesis-Vincen JV টিকিট প্রদান না করা বা পেমেন্ট প্রক্রিয়াকরণে ত্রুটি বা অন্য কোনো কারণে যা বাংলাদেশ রেলওয়ে বা Shohoz-Synesis-Vincen JV-এর নিয়ন্ত্রণের বাইরের কারণে টিকিট না দেওয়া বা ফেরত বিলম্বের জন্য দায়ী থাকবে না।
  • বাংলাদেশ রেলওয়ে কোনো গ্যারান্টি/ওয়ারেন্টি দেয় না যে অনেক পরিষেবা প্রদানকারীর উপর নির্ভরতার কারণে উপরোক্ত পরিষেবাগুলির যেকোনো একটি নিরবচ্ছিন্ন, সময়মত বা ত্রুটিমুক্ত হবে।
  • এই টিকিট অ-হস্তান্তরযোগ্য এবং অ-বরাদ্দযোগ্য।
  • 3 থেকে 12 বছর বয়সী শিশুদের জন্য ছোট টিকিট কেনা বাধ্যতামূলক৷
  • যেসব যাত্রী লাগেজের ওজন সীমার মধ্যে ভ্রমণ করেন তাদের জন্য কোনো অতিরিক্ত ফি নেই: AC- 56 KG, প্রথম শ্রেণি- 37.5 KG, শোভন চেয়ার/ শোভন- 28 কেজি, শুলোভ- 23 কেজি।
  • অনিবার্য পরিস্থিতির কারণে যাত্রার সময় কোচ/সিট নম্বর পরিবর্তন হতে পারে।
  • বাংলাদেশ রেলওয়ে একটি জাতীয় সম্পদ। টিকিট না কিনে বাংলাদেশ রেলওয়েতে ভ্রমণ করবেন না। ভ্রমণের সময় ট্রেনের টিকিট কিনুন এবং অন্যদেরও তা করতে উৎসাহিত করুন।
  • বৈধ টিকিট ছাড়া যেকোন ভ্রমণ করলে বিচারের মুখোমুখি হতে পারে। বাংলাদেশ রেলওয়েতে ভ্রমণের জন্য যাত্রীর অবশ্যই একটি বৈধ টিকিট থাকতে হবে। কোনো মেয়াদোত্তীর্ণ টিকিট বা ভবিষ্যতে ভ্রমণের তারিখ থাকা টিকিট বৈধ হবে না।
  • ভ্রমণের তারিখ এবং সময়, গন্তব্য, আসন নম্বর এবং কোচের বিবরণ সম্পর্কিত টিকিটের সঠিকতা পরীক্ষা করা গ্রাহক-যাত্রীর দায়িত্ব। পছন্দসই গন্তব্যের প্রাপ্যতা, আসন সংখ্যা ইত্যাদির উপর নির্ভর করে ভুলভাবে কেনা টিকিটগুলি প্রতিস্থাপন করা যেতে পারে।
  • এই শর্তাবলীতে বাংলাদেশ রেলওয়ে বা Shohoz-Synesis-Vincen JV দ্বারা স্বীকার করা যাই হোক না কেন, বাংলাদেশ রেলওয়ে বা Shohoz-Synesis-Vincen JV কেউই রেল টিকিট বা ভ্রমণের কারণে উদ্ভূত প্রকৃতির কোনো দায় স্বীকার করে না।

ট্রেনের টিকিট কাটার নতুন নিয়ম 

ট্রেনের টিকেট কাটার বর্তমান পদ্ধতি আগের নিয়মের থেকে একেবারে আলাদা । আগে রেল সেবা অ্যাপ এর মাধ্যমে খুব সহজেই ট্রেনের টিকেট কাটা যেত কিন্তু এখন তা আর হচ্ছে না। এখন ট্রেনের টিকেট কাটার জন্যে ২ টি পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। নিচে ট্রেনের টিকেট কাটার নতুন পদ্ধতি আলোচনা করা হয়েছে । 

নতুন নিয়মে ট্রেনের টিকিট কাটার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া 

  • প্রথমে www.eticket.railway.gov.bd ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে।ওয়েব সাইটটির নীচের দিকে “Registration” বাটনে ক্লিক করতে হবে। 
  • Create an Account” নামের নতুন একটি Page আসবে। এখানে “Personal Information”  এর সংশ্লিষ্ট ঘরগুলো প্রয়োজনীয় তথ্যাদি দিয়ে পূরণ করতঃ Security code ঘরের পাশে প্রদর্শিত “Security Code” দিয়ে পূরণ করে Register বাটনে ক্লিক করতে হবে। 
  • সকল তথ্যাদি সঠিক থাকলে “Registration Successful” নামে নতুন একটি Page আসবে। 
  • ই-টিকেটিং সিস্টেম থেকে তাৎক্ষনিকভাবে আপনার প্রদত্ত ই-মেইল ঠিকানা Bangladesh Railway এর  থেকে একটি ই-মেইল পাঠানো হবে। 
  • আপনার ই-মেইল এর মেসেজ বক্সে Bangladesh Railway প্রদত্ত ই-মেইলটি খুলতে হবে। মেসেজের ভিতর রক্ষিত “Click” লিংকটিতে ক্লিক করতে হবে। এ প্রক্রিয়ার পর যাত্রীর Registration প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হবে। 

নতুন নিয়মে অনলাইনে ট্রেনের টিকিট  ক্রয় প্রক্রিয়া 

  • প্রথমে www.eticket.railway.gov.bd ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে। 
  • “Log in” এর প্যানেল ই-মেইল ঠিকানা, পাসওয়ার্ড এবং সিকিউরিটি কোড পূরণ করতঃ “Log in” বাটনে ক্লিক করতে হবে। 
  • এরপর যে Pageটি আসবে তাতে “Purchase ticket”  বাটনে ক্লিক করতে হবে। 
  • এখানে যে Pageটি আসবে সে Page এ আপনার চাহিত ভ্রমণ তারিখ, প্রারম্ভিক স্টেশন, গন্তব্য স্টেশন, ট্রেনের নাম, শ্রেনী, টিকেট সংখ্যা যেভাবে রয়েছে তা পূরণ করতে হবে। এর পরের পেইজে “Registration Seat Available”  দ্বারা চাহিত টিকেট এবং এর মূল্যমান জানিয়ে দেয়া হবে। টিকেট থাকলে “Purchase ticket”  বাটন ক্লিক করতে হবে। 
  • ক্রেডিট কার্ড, ক্যাশ কার্ড কিংবা ব্রাক ব্যাংকের একাউন্ট মারফত যাত্রির জমাকৃত টাকা থেকে টিকেট মূল্য কেটে নেয়া হবে এবং যাত্রীর ই-মেইলে ই-টিকেটটি পাঠিয়ে টিকেট নিশ্চিত করা হয়ে থাকে। 
  • ই-মেইল মেসেজ বক্স থেকে প্রেরিত টিকেটটির প্রিন্ট নিয়ে ফটো আইডিসহ ই-টিকেট প্রদত্ত “Ticket Print Information” প্রদান করে সংশ্লিষ্ট সোর্স ষ্টেশন থেকে যাত্রার পূর্বে ছাপানো টিকেট সংগ্রহ করতে হবে। 

অনলাইন ট্রেনের টিকিট প্রিন্ট আউট করতে হবে কি? 

আপনি যদি নিজের NID ইউজ করে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করে থাকেন। তাহলে আপনার ট্রেনের টিকিট প্রিন্ট আউট করার প্রয়োজন নেই। এবং আপনি চাইলে প্রিন্ট আউট করতে পারেন। কিন্তু আপনি যদি অন্য কারো এনআইডি দিয়ে টিকিট ক্রয় করে থাকেন। তাহলে নিজের সেফটির জন্য টিকিট প্রিন্ট আউট করে নিন। হতে পারে ট্রেনের ভিতর আপনাকে কোন রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় এই টিকিট প্রিন্ট আউট না করার কারণে। 

ট্রেনের টিকেট বাতিল করার নিয়ম 

এখন পর্যন্ত অনলাইনে টিকেট কেনার পর, টিকেট বাতিল বা ফেরত দেওয়ার কোন ব্যবস্থা নেই। তবে এক্ষেত্রে, ট্রেন স্টেশন ছাড়ার একটি নির্দিষ্ট সময় পূর্ব পর্যন্ত টিকেট বাতিল করার ব্যবস্থা রাখা গেলে যাত্রীদের জন্য ভাল হত। অনেকেই ট্রেনের টিকেট 4/5 দিন আগে কিনে রাখেন। কোন অনাকাঙ্খিত সমস্যার কারণে ভ্রমণ বাতিল হতেই পারে। তাই ট্রেনের টিকেট ফেরত বা বাতিল একটি জরুরী বিষয়। 

ট্রেন টিকেট সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্ন ও উত্তর

অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কেনার জন্য ব্যবহৃত মাধ্যম কোনটি?

বর্তমানে অনলাইনে টিকেট কেনার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইট। ওয়েবসাইট থেকেই পূর্বের নিয়ম অনুসারে টিকেট ক্রয় করতে পারবেন।

কতদিন আগে ট্রেনের টিকেট কাটা যায়?

 ৫ দিন আগে থেকে অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কাটা যায়।

অনলাইনে কিভাবে ট্রেনের টিকেট কাটবো?

অনলাইনে টিকেট কাটার জন্য ই টিকেট ওয়েবসাইটে একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তারপর প্রোফাইলের তথ্য আপডেট করার পর, পছন্দের গন্তব্য অনুযায়ী ট্রেন সার্চ করে পেমেন্ট সম্পন্ন করে টিকেট কাটতে পারবেন।

অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন ছাড়া সরাসরি কি টিকেট কাটতে পারবো?

না। অনলাইনে ট্রেনের টিকেট কেনার জন্য আপনার মোবাইল, ইমেইল ও NID নম্বর দিয়ে ই টিকেট সিস্টেমে একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে হবে এবং মোবাইল নম্বর ভেরিফিকেশন করতে হবে।

কাউন্টার থেকে কেনা টিকেট কিভাবে অনলাইনে Verify করতে হয়?

কাউন্টার থেকে কেনা অফলাইন টিকেট ভেরিফাই করার জন্য, প্রথমে Railway E Ticketing system এ রেজিস্ট্রেশন ও মোবাইল ভেরিফিকেশন করুন। তারপর Verify Ticket মেন্যুতে গিয়ে মোবাইল নম্বর ও টিকেট নম্বর দিয়ে Verification করতে পারবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!