ই-সেবা

অনলাইনে নিজের পাসপোর্ট চেক করুন

অনলাইনে নিজের পাসপোর্ট চেক করুন। পাসপোর্ট অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। বিশেষ করে বিদেশে গমন করার সময় দরকার পড়ে।

স্বাভাবিকভাবে পাসপোর্ট এর কাজ সম্পূর্ণ করার পরে ভেরিফাই করার জন্য কিছু সময় নেয়। তখন মাথায় নানা রকম প্রশ্ন জাগতে থাকে।

যে কখন পাসপোর্ট ভেরিফাই হবে ? কখন পাসপোর্টটি নিজের হাতে পাব। বর্তমান পাসপোর্ট এর অবস্থা কি ? ইত্যাদি নানান বিষয়।

কিন্তু আপনি জেনে খুশি হবেন বর্তমান সময়ে ঘরে বসে পাসপোর্ট চেক করা যায়। অথচ অনেকে বিষয়টি জানেনা। আজ আমি এমন কিছু পদ্ধতি বলব ফলে অনলাইনে নিজের পাসপোর্ট চেক করুন কোন ধরনের ঝামেলা ছাড়াই খুব সহজে ।

অনলাইনে নিজের পাসপোর্ট চেক করুন

আমি তিনটা পদ্ধতি বলেছি। যখন আপনি পাসপোর্ট এর জন্য আবেদন করবেন তখন পাসপোর্ট দেবে না বরং তারা একটি স্লিপ দিবে। সেই স্লিপে enrolment Id থাকবে। এই আইডিটা সামনে কাজে লাগবে।

১. সরকারি অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে

সর্বপ্রথম আপনাকে সরকারি পাসপোর্ট এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে epassport.gov.bd । এরপর check status নামক অপশন দেখতে পারবেন। সেখানে ক্লিক করবেন।

তারপর একটি পেজ আসবে যেখানে লেখা দেখতে পারবেন Application ID আরো নানান বিষয়। আপনি application ID মধ্যে স্লিপে থাকা enrolment ID টা দিবেন।

তারপর জন্মতারিখ দিবেন। এরপর ক্যাপচা পূরণ করবেন। তারপর সার্চ বাটনে ক্লিক করবেন তাহলে আপনি আপনার পাসপোর্ট সম্পর্কে নানা রকম ইনফরমেশন দেখতে পারবেন।

২. নাম্বার দিয়ে পাসপোর্ট চেক

আপনি যদি পাসপোর্ট চেক করতে চান। তাহলে সর্বপ্রথম এই ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে  passport.gov.bd। তারপর উপরে application status নামক অপশনে ক্লিক করবেন। নিচের পেজের মত একটি পেজ আসবে।

এরপর আপনার স্লিপে থাকা enrolment ID টা এখানে দিবেন। তারপর জন্মতারিখ দিবেন। তারপর ক্যাপচা পূরণ করে সার্চ দিবেন। তারপর আপনি পাসপোর্টের ব্যাপারে যেভাবে তথ্য পেয়ে যাবেন।

৩. এসএমএসের মাধ্যমে পাসপোর্ট চেক

আপনি যখন আবেদন করেছিলেন তখন আপনাকে ইনরোলমেন্ট আইডি দেওয়া হয়েছিল। এই আইডির নাম্বার টা লাগবে নানান সময়। আপনি মেসেজ অপশন যেয়ে MRP লিখে স্পেস দিন। তারপর আমরা এনরলমেন্ট আইডি লিখুন। তারপর পাঠিয়ে দিন ৬৯৬৯ এই নাম্বারে। তারপর কিছুক্ষণের মধ্যে আপনার পাসপোর্ট সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য পাঠিয়ে দিবে।

পরিশেষে বলব : আমি তিনটা পদ্ধতি বলেছি। ফলে করে অনলাইনে নিজের পাসপোর্ট চেক করুন। যদি আমার লেখাগুলো ভালো লেগে থাকে। এবং উপকারে আসে তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন। ধন্যবাদ।

আরও পড়ুনঃ জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড করুন সহজেই

ই পাসপোর্ট ফি কত

Are you searching for e passport fee in Bangladesh or e passport bd price? Here is the full list of e passport fee with 15% vat included.

বর্তমানে বাংলাদেশের  প্রায় সব জেলাতেই ই পাসপোর্ট সুবিধা রয়েছে। আপনি অনলাইন থেকেই নির্ভূলভাবে ই-পাসপোর্টের আবেদন করতে পারবেন।

ই-পাসপোর্ট ফি এর পরিমান

ডেলিভারী48 Pages48 Pages64 Pages64 Pages
5 Years10 Years5 Years10 Years5 Years
রেগুলার৪,০২৫ টাঃ৫,৭৫০ টাঃ৬,৩২৫ টা৮,০৫০ টা
এক্সপ্রেস৬,৩২৫ টাঃ৮,০৫০ টাঃ৮,৬২৫ টা১০,৩৫০ টা
সুপার এক্সপ্রেস৮,৬২৫ টাঃ১০,৩৫০ টাঃ১২,০৭৫ টা১৩,৮০০ টা
ই পাসপোর্ট ফি

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ

  • উপরোক্ত সকল ফি’র মধ্যে ১৫% ভ্যাট অর্ন্তভূক্ত আছে
  • সরকারি চাকরিজীবিদের যাদের NOC আছে বা অবসর সনদ আছে, তারা রেগুলার ফি দিয়ে জরুরী সুবিধা পাবেন। সরকারী চাকরীজীবিদের জন্য জরুরী আবেদন প্রযোজ্য নয়।

All fees are Including 15% VAT and those who have NOC/Retired doc (Govt employees) will get Express facility with submitting regular fee.

ই-পাসপোর্ট ফি নিয়ে কিছু সচরাচর প্রশ্ন

ই পাসপোর্ট করতে কত টাকা লাগবে?

ই-পাসপোর্টের মেয়াদ, পাতার সংখ্যা ও ডেলিভারী সময়ের উপর নির্ভর করে ফি ভিন্ন হয়ে থাকে। সাধারণ আবেদনে ৫ বছর মেয়াদী ই-পাসপোর্ট ফি ৪০২৫ টাকা। ই-পাসপোর্ট ফি (E-passport Fee) দেখুন

ঘরে বসে কিভাবে ই-পাসপোর্ট ফি জমা দেব?

“এ-চালান” সফটওয়্যার এর মাধ্যমে আপনি ঘরে বসেই, বিকাশ, রকেট, সোনালী ব্যাংক সহ অন্যান্য ব্যাংকের মাধ্যমে আপনার ই-পাসপোর্ট ফি জমা দিতে পারবেন। এজন্য আপনাকে ব্যাংকে ভিজিট করতে হবেনা।

কিভাবে অনলাইনে পাসপোর্ট চেক করব ?

সরকারি পাসপোর্ট এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে epassport.gov.bd । তারপর ইনরোলমেন্ট আইডি দিবেন । জন্ম নিবন্ধন দিয়ে সার্চ অপশনে ক্লিক করবেন তাহলে পাসপোর্ট এর যাবতীয় তথ্য দেখবেন।

পাসপোর্ট বাতিল হলে করণীয় কি ?

 বাতিল দুইটি কারণে হতে পারে।
১. পুলিশ ভেরিফিকেশন এর ক্ষেত্রে আপনার কোন খারাপ রিপোর্ট এসেছে।
২. আপনি ইনফর্মেশন ভুল দিয়েছেন।

পাসপোর্ট ভেরিফাই না হলে করণীয় কি ?

একটি পাসপোর্ট তৈরি হতে সময় লাগে 21 দিন। তাই লক্ষ করবেন সময় এখন হয়েছে নাকি হয়নি ?

পুলিশ ভেরিফিকেশন কি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ?

হ্যাঁ পুলিশ ভেরিফিকেশন অনেক গুরুত্বপূর্ণ। একবার পুলিশ ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে আপনি খুব সহজেই পাসপোর্ট হাতে পাবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!