কম্পিউটার টিপস

কিভাবে কম্পিউটারের গতি বৃদ্ধি করা যায়

ইদানিং প্রায় অনেকের বাড়িতেই নিজস্ব কম্পিউটার আছে। অনেকেই দৈনন্দিন নানান কাজকর্মে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকে। কম্পিউটার ব্যবহারের সময় আমাদের অনেক ধরনের সমস্যার সম্মুখিন হতে হয়। তার মধ্যে অন্যতম একটি সমস্যা হলো কম্পিউটারের গতি বা স্পিড কমে যাওয়া। দেখা যায় PC একটু পুরানো হলেই এর গতি হ্রাস পায়। আর যতটুকু হ্রায় পায় তা চোখে পারার মতো। বিশেষ করে বিভিন্ন ধরনের বড় সাইজের অ্যাপ্লিকেশন বা সফটওয়্যার ব্যবহারের ক্ষেত্রে এটি হয়ে থাকে। অ্যাডোবি ফটোশপ বা ভিডিও এডিটিংয়ের মতো ভারি সফটওয়্যার হলে তো কথাই নেই।

মূলত স্মার্ট ব্যবহারে স্মার্ট ফোনেরও স্পিড দিনদিন কমে যেতে থাকে। ফোনের মুল্য তুলনা মুলক কম হওয়ায় ফোন চাইলেই পরিবর্তন করা যায়। কিন্তু কম্পিউটারের ক্ষেত্রে সমস্যা হলো ফোনের মতো ঘন ঘন কম্পিউটার পাল্টানো যায় না। তাই পুরানো কম্পিউটারের গতি বৃদ্ধির জন্য কিছু নিয়ম বা কৌশল অনুসরণ করতে হয়। তাহলে কীভাবে গতি বাড়ানো যাবে চলুন সে বিষয়ে বিস্তারিত জেনে আসি।

পারর্ফমেন্স বুস্টার সফটওয়্যার

থার্ড পার্টি অনেক সফটওয়্যার আছে যেগুলো উইন্ডোজ ১০ এর গতি বৃদ্ধি করে এবং জঞ্জাল পরিস্কার করে। এরকম অনেক সফটওয়্যারের আড়ালে থাকতে পারে ম্যালওয়্যার। চাইলে আইলো সিস্টেম মেকানিক সফটওয়্যারটি নামাতে পারেন। অথেন্টিক সফটওয়্যারটি কিনতে খরচ হবে ৪০ ডলার।

আনইনস্টল

কম্পিউটারে যে অ্যাপগুলো ইনস্টলড আছে সেগুলোও অনেক জায়গা দখল করে রাখে। এতে পিসি ওপেন হতে সময় বেশি লাগে। র‍্যামেরও উপরেও চাপ পরে। তাই অপ্রোয়জনীয় অ্যাপগুলো আনইনস্টল করতে হবে। প্রথমে Windows logo Start button এ রাইট ক্লিক করতে হবে। এরপর Apps and Features এ ক্লিক করলে ইনস্টলড অ্যাপের লিস্ট পাওয়া যাবে। সেখানে অ্যাপের নামের উপর ক্লিক করলেই আনইনস্টলের অপশন পাওয়া যাবে। এছাড়াও, Control Panel অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রামগুলো ডিলেট করা যাবে।

স্টার্ট আপ প্রোসেস

পিসি স্টার্ট করা মাত্র অনেক প্রোগ্রাম চালু হয়ে যায়। এগুলো বন্ধ করতে টাস্ক ম্যানেজার চালু করতে হবে। Ctrl-Shift-Esc চাপলেই প্রোগ্রামটি চালু হবে। এরপর Startup column সেকশনে ক্লিক করতে হবে। এতে থাকা প্রোগ্রাম লিস্টের উপর রাইট ক্লিক করলে disabled অপশনটি আসবে। এতে ক্লিক করলেই প্রোগ্রামটি আর পিসি চালু করার সময় হাজির হবে না।

ডিস্ক খালি করা

ডিস্ক অনেক অপ্রয়োজনীয় ফাইল, অফলাইন ওয়েব পেইজ ও ইনস্টলার ফাইল থাকে। এগুলো ডিলেট করতে Start menu-তে গিয়ে Disk Cleanup টাইপ করতে হবে। এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে পিসিতে থাকা ৪টি ড্রাইভই একে একে বেছে নিয়ে অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলিট করা যাবে।

এসএসডি ইন্সটল

সলিড স্টেট ড্রাইভ পিসিতে যুক্ত করলে তা পিসির গতি অনেক বাড়িয়ে দেয়। পুরানো পিসির গতি বাড়াতে অনেকেই আলাদাভাবে এসএসডি কার্ড কেনেন। এসএসডি কার্ড যুক্ত পিসিতে অ্যাডোবি ফটোশপের মতো সফটওয়্যারও লোড হয় দ্রুত গতিতে। ধারণক্ষমতা ভেদে এসএসডি কার্ডের দাম ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।

ভাইরাস চেক

ম্যালওয়্যার ঠেকাতে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম চালিত পিসিতে বিল্ট-ইন ডিফেন্ডার থাকে। থার্ড পার্টি অ্যাপ নামিয়েও ভাইরাস আছে কিনা তা জানা যায়। এমনই একটি থার্ড পার্টি অ্যাপ হলো ম্যালওয়্যারবিটস অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার। এটা ফ্রিতেই অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার প্রোটেকশন দেবে।

টিপস অ্যান্ড নোটিফিকেশন বন্ধ করা

অসংখ্য অ্যাপ ইনস্টল করা মানেই অগণিতবার নোটিফিকেশন পাওয়া। নোটিফিকেশনগুলো অফ রাখতে Settings অ্যাপে ক্লিক করতে হবে। এরপর সার্চ বারে গিয়ে Choose which apps show notifications লিখে টাইপ করতে হবে। এরপর স্ক্রল করে দেখা যাবে কোন কোন অ্যাপ নোটিফিকেশন পাঠায়। নোটিফিকেশন অফ করতে অ্যাপের পাশে থাকা টগল বাটনটি অফ করতে হবে। এতে অসময়ে যখন তখন আর নোটিফিকেশন আসবে না।

উপরের নিয়ম গুলো সঠিকভাবে অনুসরন করার মাধ্যমে কম্পিউটারের স্পিড বৃদ্ধি করা যায়। আপনি চাইলে আপনার কম্পিউটারে এসব পদ্ধতি আবলম্বন করে গতি বেড়ে নিতে পারবেন। আশা করি আর্টিকেলটি পড়ে আপনি একটু হলেও উপকৃত হয়েছেন। এতক্ষন আপনার মূল্যবান সময় ও মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!