মোবাইল টিপস

হারিয়ে যাওয়া অ্যান্ড্রয়েড ফোন কিভাবে খুঁজে পাবেন?

আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন কোন ট্র্যাকিং অ্যাপ ইন্সটল না করে হারিয়ে গেছে? এই বিষয়ে এখন অনেকেই জানেন যে টড়্যাকিং সিস্টেমের সাহায্যে আপনার হারিয়ে যাওয়া অ্যান্ড্রয়েড ফোন ফিরিয়ে আনা সম্ভব। আপনারা এরকম করতে পারবেন। আপনারা কোন থার্ড পার্টি ট্র্যাকিং অ্যাপের মাধ্যমে এরকম করতে পারবেন। মানে এই যে আপনি বেশ কিছু অ্যাপের মাধ্যমে এরকম করতে পারবেন। মানে এভাবে নিজের ফোনের লোকেশান আপনারা জানতে পারবেন, মানে নিজের ফোন ট্র্যাক করতে পারবেন।

তবে আপনি যদি আপনারা ফোনে কোন থার্ড পার্টি অ্যাপ না ইন্সটল করেন তবে আপনাদের বলে রাখি যে তা না করেও ফোনের লোকেশান ট্র্যাক করা যায়। আজকে আমরা আপনাদের বলব যে কি করে এরকম করা যাবে। খুব সহজেই আপনারা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন ট্র্যাক করতে পারবেন, আর নিজের ফোনে গুগল অ্যাকাউন্ট থেকে লগ ইন থাকলে মানে আপনার ফোনে যদি আপনার মেল আইডি লিঙ্ক করা থাকে তবে আপনি সহজেই আপনার ফোন ট্র্যাক করতে পারবেন। আসুন তবে দেখা যাক যে কি করে এরকম করা যাবে।

গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজার থেকে স্মার্টফোন ট্র্যাক করুন

অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজার গুগলের তরফে একটি ফ্রি টুল , এর সাহায্যে আপনারা নিজের ফোন লোকেট করতে পারবেন। তবে শুধু তাই নয় এর সাহায্যে আপনি ফোন রিং করতে পারবেন, আর ফিরিয়েও আনতে পারবেন, আর এবার আপনারা এটি রিমোটলি করতে পারবেন। আপনাদের ফোন কোন ট্র্যাকিং অ্যাপ না থাকলেও সমস্যা নেই। তবে এর জন্য আপনাদের কাছে কিছু দরকারি জিনিস থাকা দরকার, জার লিস্ট নীচে দেওয়া হয়েছে। আপনাদের বলে রাখি যে এর সাহায্যে আপনারা আপনাদের ফোন সহজে খুঁজে পাবেন।ন

  • যে গুগল অ্যাকাউন্ট থেকে এই ফোনটি লিঙ্ক করেছেন তার লগ ইন অ্যাক্সেস আপনার কাছে থাকা দরকার।
  • আর এছাড়া আপনাদের বলে রাখি যে ফোন হারিয়ে গেলে, তা লোকেট করতে চাইলে সেই ফোন অন থাকা দরকার, আর এছাড়া তাতে ইন্টারনেট থাকাও দরকার।
  • আর এই অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজারে আপনারা এর পরে কিছু করতে পারবেন না, মানে ফিন হারানোর পরে সেটিংসে পরিবর্তন করা যাবে না।
  • প্রথম থেকেই আপনাদের সেটিং অন রাখতে হবে।
  • আর এছাড়া এই ফোনের ডাটা গুগল সেটিংসে আপনারা এটি বন্ধ করতে পারবেন। তবে ডিফল্ট সেটিং লক বা তা বন্ধ থাকা দরকার।
  • আর এর পরে এটি চুরি হলে বা হারিয়ে গেলে অন্য কেউ ফোন পেলে তা ফ্যাকট্রি রিসেট করতে পারবে না, আর এর মানে এই যে আপনারা নিজের ফোন সহজে ট্র্যাক করতে পারবেন।

কি করে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজারে যাবেন

নিজের অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজারে যাওয়ার জন্য তার লগ ইন অ্যাক্সেস দরকার, আর এতে আপনারা ফোন লিঙ্ক করা হয়েছে, যা হারিয়ে গেছে। আর এর পরে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ম্যানেজারে যেতে হবে। আর এবার আপনারা অ্যান্ড্রয়েড ম্যানেজার ডিভাইসে যেতে হবে।

এখানে আপনাকে ফোন লকেট না করতে পারলে এর থেকে রিং বা ওয়াইপ করতে পারবেন। আর এবার আপনার কাছে একটি এমন প্রশ্নও আসতে পারে যে সেই সময় আপনার কম্পিউটার থাকলে আপনি কি করবেন। এর জন্য চিন্তায় থাকা দরকার নেউ। আপনি খুব সহজেই নিজের অন্য ফোন বা বন্ধু বান্ধবের ফোন থেকে এটি অ্যাক্সেস করতে পারবেন। আর আপনি গেস্ট মোডে গিয়ে গুগল অ্যাকাউন্ট লগ ইন করে তা ব্যাবহার করতে পারবেন আর ID লগ ইন করতে পারবেন।

ফোন আনলক থাকলেও কেউ খুলতে পারবে না আপনার স্মার্টফোন, করতে হবে এই সেটিং

হারিয়ে-যাওয়া-স্মার্টফোন-খুজে-পানেন-যেভাবে

  • কয়েকটি সহজ স্টেপ ফলো করে আপনি সহজেই আপনার ফোনের সমস্ত ডেটা অন্য লোকের চোখ থেকে বাচাতে পারবেন
  • Android Phone-এ Pin the Screen বা Screen Pinning ফিচার দেওয়া রয়েছে
  • Samsung এর স্মার্টফোনে এই ফিচার Pin Windows নামে রয়েছে

আপনি যদি আপনার ফোনে লক না করেন তবেও আপনার ফোন নিরাপদ থাকতে পারে এবং আপনার সম্মতি ছাড়া কেউ আপনার ডেটা দেখতে পাবে না। পাসওয়ার্ডের সাহায্যে আপনার অনুমতি ছাড়া কেউ আপনার ফোনটি খুলতে পারে না। আমরা সকলেই অন্যদের থেকে নিজের স্মার্টফোন সুরক্ষিত রাখতে ফোনে পাসওয়ার্ড দিয়ে রাখি। তবে এটা জরুরি নয় যে ফোনে লক থাকলেই আপনার ফোন সুরক্ষিত থাকবে।

এটি শুনতে অবাক লাগতে হবে, তবে তা নয়। এটা সম্ভব। আসলে, আপনার Android Phone-এ একটি বিশেষ ফিচার রয়েছে যা এটি সম্ভব করে তুলতে পারে। কয়েকটি সহজ স্টেপ ফলো করে আপনি সহজেই আপনার ফোনের সমস্ত ডেটা অন্য লোকের চোখ থেকে বাচাতে পারবেন। এই ফিচারের নাম Screen Pinning। আজ আমরা এই খবরে বলব যে কীভাবে ফোন অনলক থাকা সত্বেও আপনার অনুমতি ছাড়া আপনার ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না। তবে আসুন জেনে নেওয়া যাক এর সম্পর্কে…

SCREEN PINNING ফিচার কী:

Pin the Screen বা Screen Pinning নামের ফিচার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে দেওয়া রয়েছে। এই ফিচারের ব্যবহার করে, আপনি আপনার ফোনের ডেটা কারও কাছ থেকে সুরক্ষিত করতে পারেন। অনেক সময় আপনার ফোনটি আনলক করা থাকে না, তারপরে আপনার বন্ধু বা পরিবারের লোকেরা আপনার ফটো এবং ভিডিও সহ আপনার ডক্স ঘাটতে থাকে। এমন স্থিতিতে এই ফিচার এক্টিভ করার পরে কোনও ব্যক্তি আপনার ইচ্ছা ছাড়াই আপনার ফোন অ্যাক্সেস করতে পারে না। এই ফিচার অ্যান্ড্রয়েড 5.0 এবং তার উপরের ভার্সনে পাওয়া যাবে। Samsung এর স্মার্টফোনে এই ফিচার Pin Windows নামে রয়েছে।

কীভাবে এই ফিচার ব্যবহার করবেন:

  • এই ফিচার ব্যবহার করার জন্য প্রথমে আপনাকে ফোনের সেটিংসে যেতে হবে।
  • তারপরে Security & Lock স্ক্রিনের বিকল্প হবে যা আপনাকে ক্লিক করতে হবে।
  • এখানে প্রাইভেসির সাথে সম্পর্কিত অনেকগুলি বিকল্প থাকবে। এখানে স্ক্রল ডাউন করে Pin the Screen বা Screen Pinning নামের বিকল্প পাবেন। এটি অন করে দিন।
  • এর পরে আপনার বন্ধু যে অ্যাপটি ব্যবহার করতে চায় সেটি ওপেন করে দিন এবং তারপরে এটা বন্ধ করে দিন।
  • এবার Recent Apps এর অপশনে যান। আপনি যেই অ্যাপ করতে চান সেটা দীর্ঘক্ষণ প্রেস করুন।
  • তারপরে, Pin এর বিকল্প সিলেক্ট করুন। এটা করার পরে, আপনার পিন করা অ্যাপটি ছাড়া আর কিছুই খোলা হবে না।
  • তারপরে পিন বিকল্পটি নির্বাচন করুন। এটি করার পরে, আপনার পিন করা অ্যাপটি ছাড়া আর কিছুই খোলা হবে না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!