মোবাইল টিপস

মোবাইল কেন গরম হয়? মোবাইল গরম হয়ে গেলে করণীয় কি কি?

বর্তমান সময়ে আমরা প্রায় সবাই স্মার্টফোন ব্যবহার করে থাকি এবং এটি এখন আর কোনো বিলাসিতার বস্তু নয়। বরং দৈনন্দিন জীবনে স্মার্টফোন একটি অপরিহার্য সামগ্রী। 

তবে এটি যেমন অত্যাবশ্যকীয় একটি জিনিস তেমনি এটিকে নিয়ে উৎকন্ঠারও কোনো শেষ নেই। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রকারের ঝামেলায় পড়তে হয় এই মোবাইল ফোন নিয়ে। তন্মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি সমস্যা হলো মোবাইল ফোন গরম হয়ে যাওয়া।

প্রায়শই দেখা যায় মোবাইল ইউজ করার সময় আমাদের অতি গুরুত্বপূর্ণ এই সেটটি অত্যাধিক মাত্রায় গরম হয়ে যায়। যেটি মোবাইল ফোনটিকে দ্রুত নষ্ট করে ফেলতে পারে এবং ব্যবহারে নানান প্রতিকূল অবস্থা সৃষ্টি করতে পারে।

তবে এ নিয়ে অধিক চিন্তিত হবার কিছু নেই। সঠিকভাবে প্রয়োজনীয় কিছু দিকনির্দেশনা মেনে চললেই এই সমস্যাটি এড়িয়ে চলা সম্ভব। তাই আপনাদের সুবিধার্থে আজকের আর্টিকেলটিতে আমি আলোচনা করব মোবাইল কেন গরন হয় , মোবাইল গরম হয়ে গেলে করণীয় কি কি এবং কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করলে এই সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যেতে পারে।

মোবাইল গরম হয়ে গেলে করণীয়

কম দামী মোবাইল হোক বা বেশি দামী অথবা যেকোনো ব্রান্ড এরই হোক না কেন , মোবাইল গরম হয়ে যাওয়া একটি কমন সমস্যা। তবে কখনও কখনও এই সমস্যা মাত্রাতিরিক্ত হয়ে যেতে পারে। তো সেক্ষেত্রে আপনি কি কি করবেন?

বন্ধুরা! মোবাইল গরম হয়ে গেলে করণীয় সম্পর্কে জানার পূর্বে আমরা জেনে নেব ঠিক কি কি কারণে বা কি কাজ করলে মোবাইল গরম হয়ে যায় বা যেতে পারে।

মোবাইল অত্যাধিক গরম হয়ে যাওয়ার কারণ

মোবাইল গরম হয়ে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে বিভিন্ন জন বিভিন্ন ধরনের মতামত দিয়ে থাকেন। কেউ বলেন মোবাইলের ফাংশনাল ত্রুটি এর মূল কারণ আবার কেউ কেউ মনে করেন ব্যাটারি নষ্ট হওয়ার কারণে এমনটা হয়ে থাকে। আবার অনেকে বলে থাকেন দীর্ঘসময় মোবাইল ব্যবহারের কারণে মোবাইল গরম হয়ে যেতে পারে।

তবে এদের কোনওটিই এর একমাত্র কারণ হতে পারেনা। কিন্তু এগুলোকে এড়িয়ে যাওয়াও যাবে না। এদের পাশাপাশি আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ কারণ রয়েছে যেগুলোর কারণে মোবাইল ফোন গরম হয়ে যায়। চলুন জেনে নেই সেই কারণগুলি কি কি।

১. ভাইরাস/ ম্যালওয়্যা ইফেক্ট

মোবাইলে সঠিক সিকিউরিটি ব্যবস্থা থাকলে বা এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার সংযুক্ত না থাকলে মোবাইল ফোন সহজেই ভাইরাস (VIRUS)এবং ম্যালওয়্যার (MALWARE) দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে। সেক্ষেত্রে মোবাইল খুব অল্প সময়ের মধ্যেই অত্যাধিক গরম হয়ে যেতে পারে।

২. লো RAM ও Cache

মোবাইলের Random Access Memory (RAM) ফুল হয়ে গেলে বা কমে গেলে এবং ক্যাশ (Cache) কমে গেলে মোবাইল গরম হয়ে যায় এবং স্পিড কমে যায়।

৩. দীর্ঘক্ষণ চার্জ দেয়া

অনেকসময় দেখা যায় কেউ কেউ রাতে ঘুমের পূর্বে মোবাইল চার্জে দিয়ে ঘুমিয়ে পরেন। সেক্ষেত্রে দীর্ঘসময় মোবাইল চার্জে থেকে যায়। কিন্তু মোবাইল ফোন যদি সঠিক সময়ে Disconnect করা না হয় তবে ব্যাটারি ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং মোবাইল গরম হয়ে যায়।

৪. মোবাইলের কভার

মোবাইল গরম হয়ে যাওয়ার জন্য মোবাইলের ব্যাক কভারটিও অনেক সময় দায়ী হতে পারে। মোবাইলে সবসময় এমন কভার ব্যবহার করা উচিত যেগুলো তাপ শোষণ করতে সক্ষম। এর ফলে মোবাইলের কভার অতিরিক্ত তাপ শোষণ করে মোবাইল ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। অন্যথায় ভুল কভার ব্যবহারের ফলে মোবাইল গরম হয়ে যেতে পারে।

৫. একাধিক অ্যাপ অন রাখা

মোবাইলে একসঙ্গে একাধিক অ্যাপ চালানো কখনওই উচিত নয়। এর ফলে মোবাইলের সিপিইউ (CPU) গরম হয়ে যেতে পারে।

৬. লো চার্জ

মোবাইলে চার্জ কমে গেলে এবং সে অবস্থায় মোবাইল অপারেট (Operate) করলে বা কোনো কিছু ডাউনলোড বা ইন্সটল করলেও মোবাইল গরম হয়ে যেতে পারে।

৭. দুর্বল নেটওয়ার্ক

দুর্বল নেট কানেকশনের কারণে মোবাইল ফোন গরম হতে পারে। যদি নেটওয়ার্ক কানেকশন অনেক স্লো হয় বা আপ ডাউন করতে থাকে তবে মোবাইলে মোবাইলের কাজ করতে অনেক বেশি শক্তির প্রয়োজন হয়। ফলে দেখা যায় ফোনের চার্জ অনেক দ্রুক শেষ হয়ে যায়। আবার অধিক প্রেসারে কাজ করার ফলে মোবাইলের প্রসেসরেও চাপ পরে। যার ফলে মোবাইল গরম হয়ে যায়।

৮. প্রসেসর

প্রসেসর হলো মোবাইলের মূল ফাংশন। যেটি অন্যান্য সকল ফাংশনকে নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। ফলে একটি প্রসেসর সবসময়ই কাজ করতে থাকে। মোবাইল ব্যবহার করা হলেও বা না হলেও প্রসেসর কাজ করতেই থাকে। এই প্রসেসরের ভেতর রয়েছে অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ইলেক্ট্রন। যেগুলো প্রসেসর এর কাজের সঙ্গে সঙ্গে উত্তপ্ত হতে থাকে। ফলে মোবাইল দিয়ে যদি দীর্ঘসময় ইন্টারনেট ব্রাউজ করা , গেম খেলা বা ডাউনলোড করা হয় তাহলে ইলেক্ট্রনগুলো অধিক তাপ উৎপন্ন করে এবং প্রসেসর সমেত পুরো মোবাইল গরম হয়ে যায়।

বন্ধুরা! এতক্ষণ আমরা জানলাম কি কি কারণে মোবাইল গরম হয়ে যেতে পারে। তো এখন আমরা জানব মোবাইল গরম হয়ে গেলে তাৎক্ষণিকভাবে করণীয় কি কি।

  • হঠাৎ যদি মোবাইল অত্যাধিক গরম হয়ে যায় তবে সঙ্গে সঙ্গে মোবাইল চালানো বন্ধ করে দিন।
  • মোবাইলের ডেটা কানেকশন অন করা থাকলে অফ করে দিন।
  • বিভিন্ন সিপিইউ কুলার অ্যাপ রয়েছে যেগুলো দিয়ে সিপিইউ ঠান্ডা করা যায়। সেগুলোর কোনোটি দিয়ে সিপিইউ ঠান্ডা করার চেষ্টা করুন। 
  • মোবাইলের কভারটি খুলে ফেলুন।
  • মোবাইলটিকে ফ্যানের নিচে বা যে কোনো শীতল স্থানে রাখুন।
  • মোবাইলের চার্জ শেষ হয়ে এলে মোবাইল সুইচ অফ করে চার্জে দিন। 
  • কোনো কিছু ডাউনলোড করতে দিলে সেগুলো পজ করে ডেটা অফ করে দিন।

ফোন গরম হয়ে যাওয়া ঠেকানোর ছয় উপায়

বন্ধুরা! এতক্ষণ আমরা জেনেছি মোবাইল কেন গরম হয়ে যায় এবং মোবাইল গরম হয়ে গেলে করণীয় কি। কিন্তু এই সবকিছুর চেয়ে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো মোবাইল যাতে গরম না হয় সে ব্যাপারে সচেতন থাকে।

মোবাইল গরম হয়ে যাওয়া যেহেতু একপ্রকার রোগ বলা যেতে পারে তাই এটি প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধে সচেষ্ট হওয়াই অধিক যুক্তিযুক্ত। তাহলে চলুন বন্ধুরা জেনে নেই ফোন গরম হয়ে যাওয়া ঠেকানোর উপায়গুলো সম্পর্কে। এখানে আপনাদের অবগতির জন্য আমি সবথেকে বেশি কার্যকর ছয়টি উপায় সম্বন্ধে আলোচনা করব।

১. প্রথমত , মোবাইলে পূর্ব থেকেই অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইন্সটল করে রাখুন। যাতে ফোনে কোনো ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার আক্রমণ করতে না পারে। তাছাড়া মোবাইলে কোনো ফাইল শেয়ার বা ডাউনলোড করার সময় সতর্ক থাকুন। কেননা বেশিরভাগ সময় এ সমস্ত ফাইলের সঙ্গেই ভাইরাস মোবাইলে প্রবেশ করে থাকে।

২. দ্বিতীয়ত , মোবাইল ফোন দীর্ঘসময় চার্জ দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। সঠিক সময়ে ফোন চার্জে দেয়া এবং চার্জ থেকে বিচ্ছিন্ন করার অভ্যাস গড়ে তুলুন এবং লো চার্জে ফোনে কথা বলা , গেম খেলা বা ইন্টারনেট ব্রাউজ করা থেকে বিরত থাকুন।

৩. তৃতীয়ত , অধিক সময় ধরে মোবাইল ব্যবহার না করা। দীর্ঘক্ষণ মোবাইলে ওয়াইফাই বা ব্লুটুথ কানেকশন দিয়ে রাখা , ইন্টারনেট ব্রাউজ করা , ডেটা চালানো ,গেম খেলা , ডাউনলোড করা , কথা বলা ইত্যাদি কাজগুলো না করা।

৪. মোবাইলে এমন ব্যাক কভার ইউজ করা যেগুলো তাপ শুষে নিতে সক্ষম।

৫. মোবাইল ফোন সরাসরি সূর্যের আলো থেকে দূরে রাখা। অত্যধিক বাহ্যিক তাপমাত্রায় মোবাইলের প্রসেসর গরম হয়ে যেতে পারে। তাই যথাসম্ভব শীতল স্থানে মোবাইল রাখা বা ব্যবহার করা।

৬. একসাথে একাধিক অ্যাপ না চালানো। সেই সাথে মোবাইলের RAM এবং Cache ক্লিন এন্ড ক্লিয়ার রাখার চেষ্টা করা।

মোবাইল ফোন সবসময় গরম হয়ে গেলে তা প্রসেসরকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। যার ফলে প্রসেসর তার স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা হাড়িয়ে ফেলে এবং মোবাইল স্লো হয়ে যায়। এমনকি স্থায়ীভাবে অকার্যকর হয়ে পড়ে। তাই মোবাইল যাতে গরম না হয়ে যায় সে ব্যাপারে সর্বদা সচেষ্ট থাকুন এবং উপরে উল্লিখিত বিষয়গুলো মেনে চলুন।

কিন্তু মনে রাখবেন মোবাইল শুধুমাত্র কম দামি অথবা নিম্ন মনের হলেই তা কেবল গরম হয়ে যাবে না। নকিয়া থেকে অ্যাপল সব ফোনই অসাবধানতা ও অসতর্কতা বশত গরম হয়ে যেতে পারে। তাই আপনি যেই মোবাইল ফোনই ব্যবহার করে থাকুন না কেন এ ব্যাপারে সবসময় খেয়াল রাখতে হবে যে মোবাইল যেন অতিরিক্ত মাত্রায় গরম না হয়ে যায়।

৩৫-৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা পর্যন্ত মূলত মোবাইলের স্বাভাবিক তাপমাত্রা ধরা হয়। তাই মোবাইল যদি এই স্বাভাবিক তাপমাত্রা অতিক্রম করে তবে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করুন। কিন্তু যদি কোনোভাবেই এই সমস্যা থেকে বেড়িয়ে আসতে না পারেন তবে অনতিবিলম্বে নিকটস্থ মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টারে যোগাযোগ করুন। নতুবা আপনার ফোনটি স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যেতে পারে।

ধন্যবাদ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!