মোবাইল টিপস

কিভাবে মোবাইল রিসেট করবেন

বর্তমানে আমাদের মধ্যে প্রায় সবাই স্মার্টফোন ব্যবহার করে থাকে এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা প্রতিনিয়ত স্মার্টফোনের কিছু কমন সমস্যা ফেস করে থাকেন। যেমন- হঠাৎ ফোন বন্ধ হয়ে যাওয়া , স্লো হয়ে যাওয়া , মোবাইল হঠাৎ হ্যাং করা , কোনো অ্যাপ কাজ না করা ইত্যাদি। যে সমস্যাগুলো পারতপক্ষে খুবই বিব্রতকর এবং অনেকসময় অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজে বাঁধার সৃষ্টি করে। যার জন্য অনেককেই প্রায় সময় মোবাইল সার্ভিসিং এর দোকানগুলোতে দৌড়াদৌড়ি করতে দেখা যায়। কারণ হলো মোবাইল রিসেট করা। হ্যাঁ বন্ধুরা! মোবাইল যখন বেশ পুরোনো হয়ে যায় এবং বিভিন্ন ধরনের সার্ভিসিং প্রবলেম দেখা যায় তখন এর একমাত্র সমাধান হলো মোবাইল ফোন রিসেট (RESET) করা। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো আমরা অনেকেই জানি না যে কিভাবে একটি মোবাইল ঘরে বসেই রিসেট করা যায়।

তাই বন্ধুরা! আজকের আর্টিকেলটিতে আমি আলোচনা করতে চলেছি কিভাবে দোকানে না যেয়ে ঘরে বসেই নিজেই নিজের মোবাইল রিসেট করবেন। তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে মূল কথায় যাওয়া যাক।

মোবাইল রিসেট কি এবং মোবাইল রিসেট কেন করবেন?

বন্ধুরা! প্রথমেই আমরা জেনে নেব মোবাইল রিসেট কি এবং কেন আপনার মোবাইল রিসেট করবেন। সাধারণত একটি ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের সকল পুরাতন ডাটা ডিলিট করে মোবাইল ফোনটিকে নতুনভাবে চালু করাকেই মোবাইল রিসেট বলা হয়। অর্থ্যাৎ একটি মোবাইল নতুন অবস্থায় যেরকম ডাটা শূন্য থাকে , মোবাইল রিসেট করা হলেও সেটি সেরকম ডাটা শূন্য হয়ে যাবে এবং পুনরায় মোবাইলটিকে সেট করতে হয়। যার ফলে মোবাইল ফোনটি পূর্বের তুলনায় অনেক উঁচু মানের সার্ভিস দিতে সক্ষম হয়।

মোবাইল রিসেট করার সব থেকে বড় কারণটি হলো মোবাইলের কর্মদক্ষতা বাড়ানো। একটি মোবাইল যখন দীর্ঘদিন যাবৎ ব্যবহার করা হয় তখন স্বভাবতই মোবাইলের মধ্যে জাংক ডাটা জমতে থাকে এবং স্পেস ফুল হয়ে যেতে থাকে। যার ফলে মোবাইল হ্যাং করে বা স্লো হয়ে যায়। এমতাবস্থায় এর একমাত্র সমাধান হলো মোবাইল রিসেট করা। মোবাইল রিসেট করলে এর সমস্ত ডাটা ডিলিট হয়ে মোবাইলের স্পেস ক্লিন হয়ে যায় এবং মোবাইলের কাজের গতি বৃদ্ধি পায়। যে কারণে একটি নির্দিষ্ট সময় পর মোবাইল রিসেট করে নেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ বলে ধরা হয়।

কিভাবে মোবাইল রিসেট করবেন?

একটি মোবাইল সাধারণত দুইভাবে রিসেট করা যায়। যেমন-

  • ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট(Factory Data Reset)
  • মোবাইল হার্ড রিসেট(Mobile Hard Reset)

এখানে এই দুটি মোবাইল রিসেট পদ্ধতিই সমানভাবে কার্যকর। তবে দুটোর মাঝে কিছু তুলনামূলক পার্থক্য এবং কাজের ধারা রয়েছে। তো বন্ধুরা! চলুন এবার এই রিসেট পদ্ধতি দুটো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

১. ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট (Factory Data Reset)

বন্ধুরা! ইতিমধ্যে আমি এখানে উল্লেখ করেছি যে , একটি মোবাইল যদি রিসেট করা হয় তবে সেখান থেকে সমস্ত ডাটা এমনকি গুগল , ইউটিউব , ফেসবুক ইত্যাদি অ্যাকাউন্টগুলোও ডিলিট হয় যাবে। এমনকি মোবাইল রিসেট করার পর আপনার মোবাইলটিতে FRP (Factory Reset Protection) লক হয়ে যেতে পারে। যার ফলে আপনার মোবাইল ফোনটি আর চালু করা সম্ভব হবে না যদি না আপনার ফোনে যে Google Address এবং Password ছিল সেটি পুনরায় দিতে পারেন।

এজন্য মোবাইল রিসেট করার পূর্বে প্রত্যেককে কিছু শতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। তাই যদি আপনার মোবাইলে Factory Data Reset করতে চান তবে নিম্নোক্ত ধাপগুলো অনুসরণ করতে পারেন-

যেভাবে Google Account ডিলিট করবেন-

  • প্রথমে মোবাইলের সকল Google Account ডিলিট করে দিন।
  • এর জন্য মোবাইলের SETTINGS অপশনে যেয়ে সেখান থেকে ACCOUNTS অপশনটিতে ক্লিক করুন।
  • এরপর সেখানে মোবাইলের গুগল , ইউটিউব , ফেসবুকসহ যাবতীয় সকল অ্যাকাউন্ট শো করবে। এখন সেখান থেকে GOOGLEএ ক্লিক করুন।
  • এবার আপনার গুগল অ্যাকাউন্ট শো করবে। এখন ডান পাশের কর্নারে থাকা MORE অপশনটিতে ক্লিক করুন।
  • এরপর REMOVE ACCOUNT বাটনে ক্লিক করলেই আপনার অ্যাকাউন্টটি ডিলিট হয়ে যাবে।

যেভাবে ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করবেন-

  • সর্বপ্রথম মোবাইলের SETTINGS অপশনে প্রবেশ করুন।
  • এবার সেখান থেকে BACKUP AND RESET অপশনে ক্লিক করুন।
  • এরপর “FACTORY DATA RESET” নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন। সেখানে ক্লিক করুন।
  • এখন RESET DEVICE অপশনে ক্লিক করে OK বাটনে ক্লিক করে দিন।

ব্যাস হয়ে গেল আপনার মোবাইলের FACTORY DATA RESET. কিন্তু যেহেতু এইভাবে মোবাইল রিসেট করলে FRP লক হয়ে যাওয়ার রিস্ক থকে যায় , তাই দ্বিতীয় পদ্ধতিটি অবলম্বন করেও মোবাইল রিসেট করতে পারবেন। এতে করে FRP লক হওয়ার কোনো chance থাকে না।

২. মোবাইল হার্ড রিসেট (Mobile Hard Reset)

মোবাইলে হার্ড রিসেট করা হলে যেহেতু মোবাইলে FRP (Factory Reset Protection) লক হবার কোনো সম্ভাবনা থাকে না তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় লোকজন মোবাইল হার্ড রিসেট করাটাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়ে থাকেন। তবে সাধারণত এই কাজটিকে অনেকেই খুব ঝামেলার বিষয় বলে মনে করেন এবং যে কারণে মোবাইল রিসেট করতে বিভিন্ন মোবাইল সার্ভিসিং এর দোকানে দৌড়াদৌড়ি করেন। যেখানে ২০০-৩০০ টাকা অবধি খরচ হতে দেখা যায়।

কিন্তু বন্ধুরা খুবই সাধারণ কয়েকটি স্টেপ যদি আপনারা ফলো করতে পারেন তবে এই কাজটিকে আপনাদের কাছে মোটেই কোনো কঠিন কাজ বলে মনে হবে না। ঘরে বসেই বিনা খরচে আপনারা মোবাইল হার্ড রিসেট করতে পারবেন। এরজন্য যেই গুরুত্বপূর্ণ স্টেপগুলো ফলো করতে হবে সেগুলো হলো-

  • প্রথমেই মোবাইলটিকে পাওয়ার অফ (Power off) করতে হবে।
  • এরপর মোবাইলের Power Button + Home Button + Sound Button কিছুক্ষণ একসাথে চেপে ধরে রাখতে হবে।
  • এরপর কিছুক্ষণের মাঝেই নিচের পেজটির মত একটি পেজ দেখতে পাবেন। যেখানে লেখা থাকবে-

Reboot system now

Apply update from ADB

Wipe data/factory reset

Wipe cache partition

Apply update from external storage apply

Update from cache

  • এবার এই অপশনগুলো থেকে Wipe data reset অপশনটিতে ক্লিক করুন।
  • মনে রাখবেন , এক্ষেত্রে অপশন সিলেক্ট করতে মোবাইলের Sound Button এর + – বাটনগুলো ব্যবহার করতে হবে এবং Power Button এর মাধ্যমে অপশনস OK করতে হবে। কেননা সেসময় ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি Switch Off করা থাকবে।
  • এখন Wipe data reset অপশনটি সিলেক্ট করার পর সেখানে কয়েকটি কমান্ড শো (Show) করবে। যেখানে কেবলমাত্র একটি কমান্ড YES এবং বাকি সবগুলো কমান্ড NO আকারে দেওয়া থাকবে।
  • এবার YES বাটনটি সিলেক্ট করে পাওয়ার বাটনের মাধ্যমে OK করে দিব।
  • এরপর REBOOT SYSTEM NOW অপশনটি সিলেক্ট করে OK করে দিব।

বন্ধুরা! ব্যাস হয়ে গেল মোবাইলে়র হার্ড রিসেট করা। এবার কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে এরপর মোবাইলটি পাওয়ার বাটনের মাধ্যমে চালু করে দিন। মোবাইল চালু হলে দেখবেন যে আপনার ফোনের পূর্বের সকল ডেটা ডিলিট হয়ে গিয়েছে। অর্থ্যাৎ আপনার মোবাইল ফোনটি পুরো নতুন অবস্থায় চলে গিয়েছে। তাই মোবাইলের SETTINGS অপশনে গিয়ে প্রয়োজনীয় সকল সেটিংসগুলো সেট করে নিন। এবার মোবাইলটি ব্যবহার করলে দেখতে পাবেন আপনার মোবাইল আর পূর্বের ন্যায় হ্যাং করছেনা বা স্লো মোশনে চলছে না। এটি ইনশাল্লাহ্ একদম একটি নতুন মোবাইল ফোনের মত সার্ভিস দিচ্ছে।

সমাপ্তি

প্রিয় পাঠকবৃন্দ! আমরা এতক্ষণ মোবাইল রিসেট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করলাম এবং ইতিমধ্যে আমরা আর্টিকেলটির একদম শেষ পর্যায়ে চলে এসেছি। আশা করছি ইতিমধ্যে আপনাদের মোবাইল রিসেট সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ একটি ধারণা দিতে পেরেছি যেটি আপনাদের সাহায্য করতে পারে। তো বন্ধুরা! এবার ঘরে বসেই নিজে নিজে প্রয়োজনের সময় নিজের মোবাইল ফোনটি রিসেট করে নিন এবং উপভোগ করুন মোবাইলের বেস্ট সার্ভিসেস।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!