প্রোডাক্ট রিভিউ

কম দামে সেরা ৫টি স্মার্টফোন

এই মুহূর্তে আপনার কাছে যদি ১০-১৫ হাজার টাকা থেকে থাকে এবং আপনি চাচ্ছেন এই কম বাজেটের মধ্যে দারুন একটি স্মার্টফোন কেনার জন্য! তাহলে এই পোস্টটি শুধুমাত্র আপনার জন্য ই।

কারণ আমরা আজকে এই আর্টিকেলের মাধ্যমে কথা বলব এই কম দামের সেরা স্মার্টফোন এর ব্যাপারে যেগুলো এই বাজেট রেঞ্জে সেরা ফোন।

চলুন জেনে নেওয়া যাক কম দামের সেরা ৫টি স্মার্টফোন সম্পর্কে

ইনফিনিক্স হট ১১

ইনফিনিক্স হট ১১

ইনফিনিক্স হট ১১ ফোনটি ইউজার রিভিউ মোটামুটি ভালো মোটামুটি এন্টি লেভেল এর একটা ফোন তাই যারা বেসিক ইউজ করার জন্য ফোন খুঁজছেন। আমি মনে করি তাদের জন্য বেস্ট একটি ফোন হবে এটি।

তো এবার আমরা চলে আসি ফোনটির মধ্যে কি রয়েছে সেটির দিকে মানে কনফিগারেশনের দিকে।

৬.৮২ ইঞ্চির এইচডি প্লাস রেজুলেশনের একটি ডিসপ্লে পাচ্ছেন। যেটি একটি আইপিএস প্যানেল যার পিক্সেল ডেন্সিটি ২৬৩

আর ক্যামেরা সেকশন আসলে ফোনটির রিয়ারে আপনারা পাচ্ছেন ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ যার প্রাইমারি সেন্সর ১৩ মেগাপিক্সেল।

আর এই ক্যামেরার পারফরম্যান্স মোটামুটি লেভেলের বলা যায় এই প্রাইজ সেগমেন্টে। ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা হিসেবে পাচ্ছেন ৮ মেগাপিক্সেলের এবং এটি অ্যাভারেজ লেবেলের।

আসলে ব্যাটারি সেকশনে আপনারা পেয়ে যাচ্ছেন সিক্স থাউজেন্ড এম্পিয়ারের একটা বিগ ব্যাটারি সাথে থাকছে মাত্র টেন ওয়ার্ডের একটি চার্জার।

ব্যাটারি ব্যাকআপের কথা বলতে গেলে অনেক ভালো ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন। ব্যাটারি ব্যাকআপ ভালো চান এরকম একটি যদি ফোন কিনতে চান তাহলে এই ফোনটি নিঃসন্দেহে নিতে পারেন।

তবে একটা জিনিস মাথায় রাইখেন মাত্র ১০ ওয়াটের চার্জার দিয়ে ফোনটি চার্জ করতে কিন্তু অনেকটাই সময় লেগে যায় এই ব্যাপারটা কনসিডার করতে হবে।

এবার বলি প্রসেসর সেকশনের কথা ফোনটির মধ্যে রয়েছে MediaTek helio g35 জিপিইউ বা গ্রাফিক্স সেকশনে থাকছে powerVR ga 8320।

মিডিয়াটেক হেলিও জি ৩৫ এই প্রসেসরটি এন্টি লেভেল সেগমেন্টে ভালো একটি প্রসেসর, আপনার দৈনন্দিন কাজগুলো খুব ভালোভাবে হ্যান্ডেল করতে পারবে এই প্রসেসর।

ফোনটি আরো রয়েছে ৪ গিগাবাইট এবং ইন্টারনাল মেমোরি ৬৪ জিবি। আপ টু ২৫৬ জিবি মেমোরি লাগাতে পারবেন।

ইনফিনিক্স হট ১১ বাংলাদেশ প্রাইস

ইনফিনিক্স হট ১১ ফোনটির বর্তমানে বাংলাদেশের মার্কেটে প্রাইস ১১,৯৯০ টাকা।

আর এই প্রাইস বিবেচনায় বর্তমান সময়ে মোটামুটি একটি ভালো ফোন বলা যায় তো আপনারা চাইলে ইনফিনিক্স হট ১১ প্লে টা দেখতে পারেন।

রেডমি ১০ এস

রেডমি ১০ এস

রেডমি ১০ এস  ফোনটিও বর্তমান সময়ে কম বাজেটের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় একটি ফোন।

ফোনটিতে থাকছে আইপিএস এলসিডি প্যানেল যেটির সাইজ হচ্ছে 6.১ ইঞ্চি যার পিক্সেল ডেনসিটি ২৬৮। ডিসপ্লেতে গরিলা গ্লাসের প্রটেকশন ও থাকছে। আর ডিসপ্লে কোয়ালিটি ও মোটামুটি লেভেলের।

রেডমি ১০ এস রিয়ারে পাচ্ছেন ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ যার প্রাইমারি সেন্সর ৫০ মেগাপিক্সেল এবং আরেকটি হচ্ছে ২ মেগাপিক্সেলের ডিপ সেন্সর।

ফিফটি মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা পারফরম্যান্স যদি আমি প্রাইজ অনুযায়ী বিবেচনা করি। তাহলে এটা কি আসলে ডিসেন্ট লেভেলের ক্যামেরা বলাই যায়।

তবে এই ফোনটির সেলফি ক্যামেরা যেটি রয়েছে সেটিও এভারেজ লেবেলের আর ফোন ক্যামেরিটি হচ্ছে আপনার ৫ মেগাপিক্সেলের।

ফোরজি সাপোর্টেড এই ফোনের ব্যাটারি সেকশনে পাচ্ছেন ৫০০০ মিলিম্পিয়ারের ব্যাটারি, যার বক্সে আপনারা পেয়ে যাচ্ছেন ১৮ ওয়ার্ডের ফার্স্ট চার্জার। ব্যাটারি ব্যাকআপও মোটামুটি অনেক ভালো তাছাড়া ১৮ ওয়ার্ডের ফাস্ট চার্জার আমি মনে করি এই ফোনটির একটি প্লাস পয়েন্ট।

ফোন প্রসেসরে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকম স্নাপড্রাগণ ৬৮০ যেটি একটি অক্টোকর প্রসেসর যার আপ টু ক্লক স্পিড ২.৫ গিগাহস।

সেইসাথে জিপিইউ হিসেবে থাকছে অ্যাড্রিনো ৬১০ আর snapdragon ৬৮০ এই প্রসেসর মোটেও একটি খারাপ প্রসেসর নয়।

৪ জিবি রেম এবং ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল স্টোরেজদের সাথে বাজারে এসেছে রেডমি নোট ১০সি।

রেডমি ১০ এস বাংলাদেশ প্রাইস

Redmi 10s ফোনটির বর্তমান প্রাইস ১৫,০০০ টাকা।

আর এই প্রাইস সেগমেন্টে মোটামুটি একটা ভালো কিছুই অফার করছে ডিভাইসটি তাই এই ফোনটিও আপনার চয়েজ লিস্টে রাখতে পারেন।

 দেখে নিনঃ রিয়েলমি মোবাইল দাম

সেম্ফনি হাইলো ৩০ 

সেম্পনি হাইলো ৩০

সিম্ফনির এই ফোন বাংলাদেশের বর্তমানে পাওয়া যাচ্ছে ১৪৯৯০ টাকায় ৬-১২৮ ভেরিয়েন্ট। আর এই প্রাইজ অনুযায়ী কনফিগারেশন মোটামুটি অনেক ভালো দিচ্ছে symphony

ফোনটিতে রয়েছে ৬.৬৭ ইঞ্চি সাইজের একটি আইপিএস এলসিডি প্যানেল যার রেজুলেশন এইচডি প্লাস, যার পিক্সেল ডেনসিটি ৩৯৪ আর ডিসপ্লে পুরাই মাখন পাচ্ছেন মানে আমার দেখা এই বাজেটে সেরা ডিসপ্লে অফার করছে symphony

থাকছে কোয়াট ক্যামেরা সেটআপ প্রাইমারি ক্যামেরাটা হচ্ছে গিয়ে আপনার ১০৮ মেগাপিক্সেলের। এবং এটি পিকচার কোয়ালিটি ডিসেন্ট লেভেলের বলা যায়।

এবং বাকি দুইটা হচ্ছে আলট্রা ওয়াইট ম্যাক্রো এবং ডিপ সেন্সর। ফ্রন্ট ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে সিক্সটিন মেগাপিক্সেলের।

রয়েছে ৫,০০০ হাজার মিলি এম্পিয়ার এর ব্যাটারি এবং এর বক্সে থাকছে দশ ওয়ার্ডের চার্জার। প্রসেসর সেকশনে পাচ্ছেন MediaTek helio p70 যার আপ টু ক্লক স্পিড ১.৮ গিগাহার্জ। ৬ গিগাবাইট র্যাম এবং ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ।

সেম্পনি হাইলো ৩০ প্রাইস ইন বাংলাদেশ

ফোনটির বর্তমান অফিসিয়াল প্রাইস ১৪৯৯০ টাকা। তাই অফিসিয়াল ডিভাইস হিসেবে এটি ভ্যালুফার মানি আপনার জন্য।

রেডমি ১০ ২০২২

রেডমি ১০ ২০২২

রেডমি ১০ ২০২২ ফোনটির মার্কেটে ভালই দর্শক আকৃষ্ট করেছে লক্ষ্য করলাম। আর হ্যাঁ বলে রাখা ভালো ফোনটি আপনারা ১৫ হাজার টাকার আশেপাশে পেয়ে যাবেন।

৬.৫ ইঞ্চি সাইজের ফুল এইচডি ডিসপ্লে পাবেন। যেটি ৯০hz রিফ্রেশ রেট সাপোর্ট করে। ডিসপ্লের পিক্সেল ডেনসিটি 405 এবং ডিসপ্লে প্রটেকশনে থাকছে কর্নিং গরিলা গ্লাস থ্রি ফোরজি সাপোর্টেড এই ফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে কোয়াট ক্যামেরা সেট আপ। প্রাইমারি সেন্সর 50 মেগাপিক্সেলের এবং বাকি তিনটা হচ্ছে আলট্রা ওয়াইট ম্যাক্রো এবং ডিপ সেন্সর।

প্রাইমারি ক্যামেরার পারফরম্যান্স এভারেস্ট লেভেলের তবে আরেকটু ভালো হতে পারতো। তবে সেলফি ক্যামেরা মোটামুটি ভালো সেলফি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে ৮ মেগাপিক্সেলের।

জেনে নিনঃ ২৫ হাজার টাকার মধ্যে সেরা কয়েকটি মোবাইল

ব্যাটারি ৫,০০০ মিলি এম্পিয়ারের ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। এবং এর বক্সে থাকছে ২৫ ওয়ার্ড এর চার্জার। তো সত্যি কথা বলতে গেলে মোটামুটি ব্যাটারি সেকশনে আপনাকে হ্যাপি করবে ফোনটি।

ফোনটির প্রসেসর সেকশনে বলি-MediaTek helio G88 প্রসেসর যার আপ টু ক্লক স্পিড টু গিগাহার্জ। এবং গ্রাফিক্স সেকশনে থাকছে মালি জি৫২। ৪ গিগাবাইট র্যাম এবং ৬৪ – ১২৮ গিগাবাইট ইন্টার্নাল স্টোরেজ এর সাথে ফোনটি বাজারে এসেছে।

রেডমি ১০ ২০২২ প্রাইস ইন বাংলাদেশ

রেডমি ১০ ২০২২ ফোনটির ৪ জিবি প্লাস ৬৪ জিবি ভেরিয়েন্টের প্রাইস আনঅফিসিয়ালি: ১৪ হাজার ৯৯০ টাকা। তো এই বাজেটে ফোনটি অসাধারণ হতে পারে আপনার জন্য।

ইনফিনিক্স হট ১১এস

ইনফিনিক্স হট ১১এস

ইনফিনিক্স হট ১১এস ফোনটি বর্তমানে বাংলাদেশের মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে মোটামুটি ভালো মানের একটা প্রাইজে আর ফোনটি যারা কিনবেন তাদের জন্য recomment থাকবে ৬- ১২৮ জিবি ভেরিয়েন্ট কেনার জন্য। তাহলে আপনি বেটার পারফরম্যান্স পাবেন ফোনটি থেকে।

ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 6.৭ ইঞ্চির ৯০hz এর হাই রিফ্রেশ রেট সাপোর্টেড এইচডি প্লাস এলসিডি প্যানেল পেয়ে যাচ্ছেন। যার পিক্সেল ডেন্সিটি হচ্ছে গিয়ে ৩৯৯ আর ডিসপ্লে তে গরিলা গ্লাসের প্রটেকশন তো থাকছেই।

ফোনটি রিয়ারে আপনারা ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ পেয়ে যাবেন যার মধ্যে প্রাইমারি সেন্সর টি ৫০ মেগাপিক্সেলের এবং এই ক্যামেরার পারফরম্যান্স দুর্ধর্ষ।

আর ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরা পাচ্ছেন ৮ মেগাপিক্সেল যার অ্যাপেচার ২.০, রয়েছে ৫ হাজার মিলি আম্পিয়ারের একটি দারুন ব্যাটারি। যার সাথে বক্সে থাকছে ১৮ ওয়ার্ডের ফাস্ট চার্জার।

ফোনটি বেশি ব্যাটারি চার্জ থাকবে টানা একদিন আর রেগুলার ইউজ করলে সাত থেকে আট ঘন্টা ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন।

ফোনটির সাথে রয়েছে দারুণ প্রসেসর সেটি হল MediaTek helio g88 প্রসেসর যার পারফরম্যান্স অনেক ভালো এটি দিয়ে গেমিং ও করা যাবে।

রেম হিসেবে পাচ্ছেন ৪ জিবি প্লাস ৬ জিবি র‍্যাম আর ইন্টার্নাল স্টোরেস হিসেবে থাকছে ৬৪ এবং ১২৮ গিগাবাইট।

ইনফিনিক্স হট ১১এস প্রাইস ইন বাংলাদেশ

ইনফিনিক্স হট ১১এস ফোনটির বর্তমান অফিসিয়াল প্রাইস ১৫,৫০০ টাকা।

তো এই ছিল এই ফোনটির ব্যাপারে তাই আপনার বাজেট যদি পনেরো হাজার টাকার আশেপাশে হয় তাহলে আপনার জন্য গুড চয়েজ হতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!